মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C

দর্শনীয় স্থান

ক্রমিক নাম কিভাবে যাওয়া যায় অবস্থান
ভবদহ নওয়াপাড়া থেকে পাকা রাস্তা দিয়ে পায়রা ইউনিয়ন হয়ে গাড়ী বা মটর সাইকেল যোগে ভবদহ এলাকায়া যাওয়া যায়।
রুপ সনাতন ধাম, অভয়নগর নওয়াপাড়া বাজার হতে মটর সাইকেল বা ট্রেকার যোগে সুন্দলী ইউনিয়নের রামসরা ধামে যাওয়া যায়।
নওয়াপাড়া পীরবাড়ী নওয়াপাড়া বাসস্ট্যান্ড হতে ২০০ গজ দক্ষিণে নওপাড়া পীরবাড়ী দেখা যাবে।এখানে পীর সাহেবের মাজার, বিশালাকৃতির এতিমখানা ও পীরবাড়ী শাহী মসজিদ অবস্থিত। এখানে প্রতি সপ্তাহে ছু্টির দিনে প্রচুর লোকের সমাগম ঘটে।
পুড়াখালী বাওড় নওয়াপাড়া বাজার হতে ভৈরব নদীর ফেরি পার হয়ে মটর সাইকেল,অটো রিক্সা,ভ্যান যোগে পুড়াখালী বাওড়ে যাওয়া যায়।
ঝাপা বাওড় সড়ক পথে- ঢাকা থেকে ঢাকা-খুলনা জাতীয় মহাসড়কে যশোর অতিক্রম করে রাজার হাট নামক স্থান হতে সাতক্ষীরা রোডে প্রায় ১৪ কিঃমিঃ মণিরামপুর উপজেলা পরিষদ ।পরিষদ হতে রাজগঞ্জ বাজার সংলগ্ন ঝাপা বাওড় ১০ কি:মি: । যশোর পালবাড়ী থেকে রাজগঞ্জ বাসস্ট্যান্ড হয়ে ২২কিঃমিঃ দক্ষিণে রাজগঞ্জ বাজার সংলগ্ন ঝাপা বাওড়। খুলনা ও সাতক্ষীর হতে খুলনা-সাতক্ষীরা রোডের চুকনগর নামক স্থান হতে যশোর দিকে ২৬কিঃ মণিরামপুর উপজেলা পরিষদ। পরিষদ হতে রাজগঞ্জ বাজার সংলগ্ন ঝাপা বাওড় ১০ কি:মি: ।
দমদম পীরের ডিবি সড়ক পথে- ঢাকা থেকে ঢাকা-খুলনা জাতীয় মহাসড়কে যশোর অতিক্রম করে রাজার হাট নামক স্থান হতে সাতক্ষীরা রোডে প্রায় ০৭ কিঃমিঃ মণিরামপুর এর দিকে সড়ক সংলগ্র ভোজগাতী ইউপির অধীন।
তুলা বীজ বর্ধন খামার উপজেলা সদর থেকে ভ্যান, রিক্সায় বা ইজিবাইকে যাওয়া যায়। উপজেলা থেকে দূরত্ব ১০ কিমি।
নওয়াপাড়া শহর ও ভৈরব নদী ভৈরব নদীর তীরে শিল্প শহর নওয়াপাড়া বাজার অবস্হিত। মেইন রাস্তা হতে ১০০ গজ হেটে গেলেই ভৈরব নদী দেখা যাবে। এই নদী পাশ ঘেষেই গড়ে উঠেছে শিল্পশহর নওয়াপাড়া বাজার।এই নদীতে প্রতিনিয়ত জাহাজ বা কার্গোতে দেশ বিদেশ হতে বিভিন্ন প্রকার মালামাল আনা-নেওয়া করা হয়।
১১ শিব মন্দির,অভয়নগর অভয়নগর শহর হতে ভৈরব নদী পার হয়ে মটরসাইকেল বা ট্রেকারযোগে বাঘুটিয়া ইউনিয়নে গেলেই প্রাচীন এতিহ্য ১১ শিব মন্দির দেখতে পাওয়া যাবে।
১০ খড়িঞ্চা বাওড় চৌগাছা উপজেলার সদর হতে ৮ কি.মি দূরে চৌগাছা-পূড়াপাড়া পাকা সড়কের দক্ষিণ পাশে খড়িঞ্চা গ্রামে অবস্হিত।
১১ গদাধরপুর বাওড় চৌগাছা উপজেলার সদর হতে ৮ কি.মি দূরে চৌগাছা-মাশিলা সড়কের দক্ষিণ পাশে গদাধারপুর গ্রামে সীমান্তের শূন্য লাইনে অবস্হি ।
১২ যাত্রাপুর ইউনিয়ন ইউনিয়ন পরিষদ চৌগাছা উপজেলার সদর হতে পূর্ব দিকে ১কি:মি:নবীপুর স্টেশন হতে উওর দিকে শ্রীকাইল-নবীপুর রোডে ৪ কিমি: গেলেই মোচাগড়ায় ইউনিয়ন পরিষদ ভবন।
১৩ মহাকবি মাইকেল মধু সূদন দত্তের বাড়ি সড়ক পথে- ঢাকা থেকে ঢাকা-খুলনা জাতীয় মহাসড়কে যশোর অতিক্রম করে রাজার হাট নামক স্থান হতে সাতক্ষীরা রোডে প্রায় ৩৬ কিঃমিঃ কেশবপুর উপজেলা পরিষদ ।পরিষদ হতে কেশবপুর টু সাগরদাঁড়ী প্রায় ১৬ কি:মি: অতিক্রম করে মহাকবি মাইকেল মধুসূধন দত্তের পৈত্রিক জন্ম ভূমি।
১৪ মধুপল্লী সড়ক পথে- ঢাকা থেকে ঢাকা-খুলনা জাতীয় মহাসড়কে যশোর অতিক্রম করে রাজার হাট নামক স্থান হতে সাতক্ষীরা রোডে প্রায় ৩৬ কিঃমিঃ কেশবপুর উপজেলা পরিষদ ।পরিষদ হতে কেশবপুর টু সাগরদাঁড়ী প্রায় ১৬ কি:মি: অতিক্রম করে মহাকবি মাইকেল মধুসূধন দত্তের পৈত্রিক জন্ম ভূমি।
১৫ ভরতের দেউল কেশবপুর উপজেলা সদর হতে ঊনিশ কি.মি দক্ষিণ-পর্ব দিকে ভদ্রা নদীর তীরে ভরতের দেউল অবস্থিত
১৬ মীর্জানগর হাম্মামখানা কেশবপুর হতে ৭ কি.মি. পশ্চিমে কপোতাক্ষী ও বুড়িভদ্রা নদীর সঙ্গমস্থল ত্রিমোহিনী নামক স্থানে
১৭ ধীরাজ ভট্রাচার্যের বাড়ি কেশবপুর হতে ৭কি.মি দুরে পাঁজিয়া গ্রামে অবস্থিত
১৮ কালুডাংগা মন্দির এই মন্দির দোহাকুলা ইউনিয়নে অবস্থিত।বাঘারপাড়া হতে বালিডাংগা বাজার পৌঁছে তালতলা যেতে হবে। তালতলা হতে বামদিকে ৫০০গজ দূরত্বে কালুডাংগা মন্দির অবস্থিত।বাঘারপাড়া হতে যে কোন যানবাহনে যাওয়া যায়।
১৯ চাঁচড়ার মৎস উৎপাদন কেন্দ্র চাঁচড়া ইউনিয়ন পরিষদ থেকে মাত্র তিন কিলোঃ মিটার দূরে চাঁচড়ার মৎস উৎপাদন কেন্দ্রটি অবস্থিত।১০ নং চাঁচড়া ইউনিয়ন পরিষদ থেকে ভ্যান/ইজিবাইক/বাস এ করে যাওয়া যায়।
২০ বেনাপোল স্থল বন্দর যশোর থেকে গাড়ী,বাস অথবা অটোতে করে শার্সা উপজেলায় যেতে হয়।শার্শায় বেনাপোল বন্দর অবস্থিত।

সর্বমোট তথ্য: ২৬